চাকরিতে বয়সসীমা স্থায়ীভাবে ৩২ করার দাবিতে ডাক
job news সরকারি চাকরি

চাকরিতে বয়সসীমা স্থায়ীভাবে ৩২ করার দাবিতে ডাক

চাকরিতে বয়সসীমা স্থায়ীভাবে ৩২ করার দাবিতে ডাক: করোনার কারণে সরকারি চাকরির বহু বিজ্ঞপ্তি আটকে গেছে‌। ফলে সাম্প্রতিক মাসগুলোতে বয়স ৩০ পেরোবে, এমন লাখ লাখ প্রার্থী চাকরির আবেদনের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবে
করোনাকালীন এই ক্ষতিগ্রস্ততায় সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা স্থায়ীভাবে ৩২ করার দাবিতে ২৭ জুন ২০২১ (রবিবার) মানবন্ধন করবে ৩২ প্রত্যাশীরা। সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর শাহবাগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হবে।
করোনার কারণে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা স্থায়ীভাবে ৩২ করার দাবি জানিয়েছেন চাকরিপ্রত্যাশী যুবকেরা। গতকাল রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘চাকুরি প্রত্যাশী যুব প্রজন্ম’-এর ব্যানারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তাঁরা এ দাবি জানান।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তানভির হোসেন, মার্জিয়া মুন, মানিক রিপন ও ডালিয়া আক্তার। তাঁরা দাবি করেন, করোনাকালে ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীরা তাঁদের জীবন থেকে দুই বছর হারাতে বসেছেন। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, করোনাকালে চাকরির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরিমাণ ৮৭ থেকে ১৩ শতাংশে নেমে এসেছে। এ করোনাকালে প্রায় দেড় লাখ পরীক্ষার্থী চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা হারিয়েছেন।
বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ১৯৯১ সালে শেষবার সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ২৭ থেকে বৃদ্ধি করে ৩০ করা হয় যখন গড় আয়ু ছিলো ৫৭ বছর । এই ৩০ বছরে গড় আয়ু ১৬ বছর বৃদ্ধি পেয়ে ৭৩ বছর হলেও বৃদ্ধি পাই নাই চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা। ২০১১ সালে এসে অবসরের বয়সসীমা বেড়ে হয় ৫৯ আর মহান মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য হয় ৬০। অবসরের বয়স যেহেতু ২ বছর বৃদ্ধি পেয়েছে সেক্ষেত্রে চাকরিতে প্রবেশের বয়স ২ বছর বৃদ্ধি করলে সেটাও আর সাংঘর্ষিক হয় না। সবকিছু বিবেচনায় চাকরির বয়সসীমা ৩২ বছর করা এখন সময়ের দাবি।
সরকারি চাকরিপ্রত্যাশী যুব প্রজন্মের দাবি:
করোনায় শিক্ষার্থীদের প্রায় ২ বছর সময় জীবন থেকে অতিবাহিত হতে চলেছে। তাই করোনাকালীন সরকারের সকল প্রণোদনার পাশাপাশি মুজিববর্ষের ও স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির বছরে আমরা বেকার যুবকরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নিকট ‘প্রণোদনা স্বরূপ’ সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩২ বছর করার দাবি জানাচ্ছি
চাকরিপ্রত্যাশী যুব প্রজন্মের টিম লিডাররা বলেছেন গত তিনমাস ধরে বিভিন্ন ধরনের কর্মসুচি পালন করে আসছি। বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ের দফতরে গিয়ে স্মারকালিপি ও খোলা চিঠি দিয়ে আসছি। বিষয়টি নিয়ে সংসদে বলার জন্য দেশের অনেক সাংসদদের অবগত করেছি। এছাড়াও শাহবাগে মানববন্ধন, গণসাক্ষর, ও সংসদ ভবন এলাকায় মৌনসমাবেশ করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *